• রোববার   ৩১ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৭ ১৪২৭

  • || ০৮ শাওয়াল ১৪৪১

আমার রাজশাহী
৩৫

বিএনপির কার্যালয় থেকে পিপিই-মাস্ক চুরি, অভিযোগের তীর রিভজীর দিকে

ডেস্ক নিউজ

প্রকাশিত: ১৯ এপ্রিল ২০২০  

কাকডাকা ভোর থেকে মধ্যরাত, দেশে উদ্ভূত করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবিলায় নিরলসভাবে কাজ করছে সরকার। অথচ এই সংকটময় সময়ে জনগণের পাশে না থেকে বরং একের পর উদ্ভট ও হাস্যকর কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করছেন বিএনপি নেতাকর্মীরা। তারই ধারাবাহিকতায় এবার তারা করোনা চিকিৎসায় নিয়োজিতদের জন্য দলীয় কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে রাখা পারসোনাল প্রোটেকটিভ ইকুইপমেন্ট (পিপিই) ও মাস্ক চুরি করে বিক্রি করে দিয়েছেন। আর এর পেছেনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদের প্রচ্ছন্ন ইন্ধন ও সমর্থন রয়েছে বলে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে।

বিএনপির নয়াপল্টন পার্টি অফিসের একটি ঘনিষ্ঠ সূত্র বলছে, করোনা সংকটে চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিত বিএনপিপন্থী চিকিৎসক ও স্বেচ্ছাসেবীদের জন্য ২০০টি পিপিই ও ৪০০ পিস মাস্ক নয়াপল্টন পার্টি অফিসকে উপহার দিয়েছিল ড্যাব ও জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনের (জেডআরএফ) নেতারা। দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ নিজে উপস্থিত থেকে সেগুলো গ্রহণ করেন। প্রয়োজন মাফিক সেগুলো বণ্টন করে দেয়ারও ঘোষণা দিয়েছিলেন রিজভী। কিন্তু ১৫ এপ্রিল ঘটল ভিন্ন এক ঘটনা। জরুরি প্রয়োজনে রিজভীকে পিপিই ও মাস্ক হস্তান্তরের জন্য বিএনপির তৃতীয় ক্ষমতাধর ব্যক্তি ও দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল অনুরোধ করলে, তিনি গড়িমসি করা শুরু করেন। পরবর্তীতে জানা যায়, উপহার হিসেবে পাওয়া পিপিই ও মাস্কের অর্ধেকের কোন হদিস নেই। সেসব রিজভী আহমেদের পরোক্ষ মদদে খোলাবাজারে বিক্রি করে দেয়া হয়েছে। আর এ কাজে নয়াপল্টন অফিসের একজন অফিস সহকারী তাকে সহায়তা করেছেন বলে গুঞ্জন চাউর হয়েছে। করোনার এই সংকটময় সময়ে রিজভী আহমেদের এমন দুর্নীতির খবর জানাজানি হওয়ায়, দলটির অভ্যন্তরে চলছে নানা সমালোচনা।

পিপিই ও মাস্ক চুরির গুঞ্জনের সত্যতা জানতে বিএনপির নয়াপল্টন পার্টি অফিসের স্টাফ ফারুকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, পিপিই ও মাস্ক খোয়া গেছে, এটি শুনছি। সবাই বলছেন, রিজভী স্যার নাকি এটা আরেক স্টাফ মঞ্জুর মাধ্যমে চোরাবাজারে বিক্রি করে দিয়েছেন। জানি না সত্যি কিনা। তবে গত কয়েকদিন ধরে রিজভী স্যার ও মঞ্জুর মধ্যে ফোনে খুব কথাবার্তা চলছিলো-এটা স্বচক্ষে দেখেছি। পাশাপাশি মঞ্জুকে গত কয়েকদিন ধরে গভীর রাতে ব্যাগভর্তি জিনিস নিয়ে বাইরে যেতেও দেখেছি। তাকে জিজ্ঞাসা করলে, সে প্রত্যেকবারই জবাব দেয়- ব্যাগে রিজভী স্যারের বাসার বাজার। এসব নিয়ে এখন ফখরুল স্যার খুব রাগারাগি করছেন। শুনেছি রিজভী স্যারকে নাকি তিনি ইতোমধ্যে বকাও দিয়েছেন!

আমার রাজশাহী
আমার রাজশাহী
রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর