• সোমবার   ০১ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৭ ১৪২৭

  • || ০৮ শাওয়াল ১৪৪১

আমার রাজশাহী
৪৪

রাজশাহীতে বিয়েতে এসে ভারতীয় তিন পরিবার পড়েছেন দূর্ভোগে

নিজস্ব প্রতিবেদক :

প্রকাশিত: ২৩ মে ২০২০  

বাংলাদেশে ফুপুর বাড়িতে এসেই করোনা লকডাউনের ফাঁদে তিনজন ভারতীয়। এই অবস্থান রাজশাহী নগরীর সুজানগর কয়েরদাঁড়া এলাকায়। 

তিন ভাই ইমদাদুল শেখ, রজব আলি এবং আমজাদ আলি এবং তাদের পরিবার। তাদের বাড়ি ভারতে মুর্শিদাবাদ জেলার বহরমপুরে। ফুপুকে দেখতে এবং ভাগনের বিয়েতে এসেছিলেন তারা। ১৫ জন আসেন সোনা মসজিদ সীমান্ত দিয়ে।

১৪ মার্চ আসেন তারা। ২২ মার্চ বাড়ি ফেরার জন্য গিয়ে দেখেন সীমান্ত বন্ধ। সেখানে জানতে পারেন দর্শনা সীমান্ত খোলা রয়েছে। পর দিন ২৩ মার্চ তারা দর্শনা যান। সেখানেও দেখেন সীমান্ত বন্ধ করে দিয়েছে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ। 

১৮ মে তারা উন্নয়ন সংগঠন পরিবর্তনের সহযোগিতায় অনলাইনে ভারত সরকারের কাছে আবেদন করেন। বিশেষ বিমানে যাতে তাদের দেশে ফেরানো হয়।
 
১৯ মে মাত্র তিন জনের ভারতে ফেরার ব্যবস্থা হয়। এর মধ্যে বিমানে ফেরার অপেক্ষায় তাদের আট জন বর্তমানে ঢাকার সাভারে রয়েছেন। আ

গামী ২৫ অথবা ২৬ মে পরবর্তি ফ্লাইটে তাদের যাবার ব্যবস্থা হতে পারে। সাভারে এক আত্মীয়র বাড়িতে রয়েছেন। সেখানে এক রুমের একটি বাড়িতে তারা খুব কস্টে রয়েছেন। বাকি চারজন এখনো রাজশাহীতে রয়েছেন বলে জানিয়েছেন তাদের ফুপতো ভাই সাইনুল। যিনি কয়েরদাড়া এলাকায় থাকেন।
 
ছয় দিনের প্রস্তুতি নিয়ে তারা বাংলাদেশে আসেন। দুই মাসের বেশি পার হয়ে গেছে। ফুপাতো ভাই সাইনুল দিন মজুর। পাইপ মিস্ত্রির কাজ করেন। তার উপার্জনে সংসার চলে। দীর্ঘদিন সে কাজ পায়নি। 

ছোট ঘরে সেখানে তারা ১৫ জন এবং ফুপুর পরিবারের সদস্য মিলিয়ে প্রায় ৩০ জন থাকছেন খুব কস্টের মধ্যে। তারা বাংলাদেশ ও ভারত সরকারের কাছে আবেদন করেন তাদের যেনো ভারতে ফিরিয়ে দেয়া হয়।

১৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বেলাল আহাম্মেদ জানান, একটা বিয়ের অনুষ্ঠানে তারা এসেছিল। লকডাউনের কারনে তারা আটকা পড়েন। যে পরিবারে তারা আছে তারা দরিদ্র। তাদের জন্য সরকারি সহায়তা যা আছে তা দেয়া হচ্ছে। সরকারি ভাবে তাদের যদি দেশে ফিরে যাওয়ার ব্যবস্থা করা হয় তবে ভালো হয়।

এ বিষয়ে রাজশাহীস্থ ভারতীয় উপ দূতাবাসের সহকারি হাই কমিশনার সঞ্জিব কুমার ভাট্টির সাথে যোগাযোগ করা হয় তিনি কথা বলতে রাজি হননি। তবে হাইকমিশনের একটি সুত্র জানায়, সীমান্ত বন্ধ রয়েছে যে কারনে তারা যেতে পারছেন না। তাদের বিষয়ে খোঁজ খবর রাখছেন। তাদের খাদ্য সহযোগিতা দেয়া হয়েছে। তাদের বিষয়ে ওপর মহলে জানানো হয়েছে।

সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, করোনার কারণে সীমান্ত বন্ধ থাকায় বেশ কয়েকজন ভারতীয় নাগরিক রাজশাহীতে আটকা পড়েছেন। তারা এক রকম মানবেতর জীবনযাপন করছেন। 

বাংলাদেশ যেমন তার নাগরিকদের ভারত থেকে ফিরিয়ে এনেছে। সেভাবে ভারতীয় নাগরীকদেরও ফিরিয়ে নিবে এটাই প্রত্যাশা করি। এক্ষত্রে তিনি ভারতীয় হাইকমিশনের সাথে যোগাযোগ করবেন। তিনি এর জন্য সব ধরনের সহযোগিতা করবেন বলে জানান।

আমার রাজশাহী
আমার রাজশাহী