সোমবার   ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০   ফাল্গুন ১১ ১৪২৬   ২৯ জমাদিউস সানি ১৪৪১

আমার রাজশাহী
৩৩

রাজাকার জাফর ইমামের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারি ২০২০  

রাজশাহীর টেনিস কমপ্লেক্স থেকে রাজাকার জাফর ইমামের নাম প্রত্যাহারের দাবিতে জেলা প্রশাসককে স্মারকলিপি দিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধারা। রোববার বিকেলে জেলা ও মহানগরের মুক্তিযোদ্ধারা জেলা প্রশাসক হামিদুল হককে স্মারকলিপিটি তুলে দেন। এসময় রাজাকার জাফর ইমামের দেশের স্বাধীনতা বিরোধী অপকর্ম সম্পর্কে মুক্তিযোদ্ধা ও প্রত্যক্ষদর্শীসহ ১১ জনের লিখিত বক্তব্য দেয়া হয়। স্মারকলিপিতে ৯৮জন মুক্তিযোদ্ধাও স্বাক্ষর করেছেন।

স্মারকলিপি প্রদান শেষে মহানগর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার ডা. আব্দুল মান্নান জানান, জাফর ইমাম একজন ঘৃণ্য রাজাকার ছিলেন। প্রত্যক্ষদর্শী সাধারণ মানুষ ও মুক্তিযোদ্ধাসহ ১১জন রাজাকার জাফর ইমামের স্বাধীনতা বিরোধী কার্যক্রম সম্পর্কে সুনির্দিষ্ট বিষয় তুলে ধরে লিখিত বক্তব্য জেলা প্রশাসককে দিয়েছেন। জাফর ইমাম রাজাকার ছিলেন- এবার আর কোন সংশয় থাকার সুযোগ নেই। জাফর ইমাম কুখ্যাত রাজাকার ছিলেন এবিষয়টি পরিস্কার করা হয়েছে। উচ্চ আদালতের নির্দেশনাও রয়েছে, কোন যুদ্ধাপরাধীর নামে কোন স্থাপনার নাম থাকবে না। থাকলেও আগামী ফেব্রুয়ারির মধ্যে তা অপসারণ করতে হবে। জেলা প্রশাসক নামটি অপসারণে আমাদের আশ্বাস দিয়েছেন, এখন অপেক্ষার পালা।

এসব বিষয়ে জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক বলেন, জাফর ইমাম রাজাকার ছিলেন বলে মুক্তিযোদ্ধারা লিখিত দিয়েছেন। প্রত্যক্ষদর্শীরাও লিখিত দিয়েছেন। এখন আইন অনুযায়ী আমরা ব্যবস্থা নেবো।
স্মারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা সফিকুর রহমান রাজা, মুস্তাফিজুর রহমান খান আলম, জিনাতুন নেসা তালুকদার,  তৈয়বুর রহমান, মতিউর রহমান প্রমূখ।

২০১৭ সালের ১২ ডিসেম্বর দৈনিক সমকালে রাজাকার জাফর ইমামেম নামে রাজশাহীতে টেনিস কমপ্লেক্স শিরোনামে একটি একটি বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ হয়েছিলো। এরপরই মুক্তিযোদ্ধারা সরব হন নামটি বদলের জন্য। বিভিন্ন সময় তারা আন্দোলন করেছেন, পোষ্টার লিফলেট বিলি করেছেন নাম বদলের জন্য। কিন্তু রহস্যজনক কারণে স্বাধীনতার ৪৯ বছর পরেও রাজাকার জাফর ইমামের নামেই রয়ে যায় রাজশাহী টেনিস কমপ্লেক্সের নাম।
 

এমএমআই

আমার রাজশাহী
আমার রাজশাহী
এই বিভাগের আরো খবর