• মঙ্গলবার   ০৭ এপ্রিল ২০২০ ||

  • চৈত্র ২৩ ১৪২৬

  • || ১৩ শা'বান ১৪৪১

আমার রাজশাহী
৩২

খালেদা জিয়ার সাক্ষাৎ চায় পরিবার, নাখোশ মির্জা ফখরুল!

ডেস্ক নিউজ

প্রকাশিত: ২৩ মার্চ ২০২০  

কারান্তরীণ অবস্থায় চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাতের চেষ্টা করায় পরিবারের সদস্যদের উপর চরম ক্ষিপ্ত হয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। দেশে চলমান করোনা পরিস্থিতিতে বেগম জিয়ার মতো সত্তোরোর্ধ মানুষের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যাওয়াটা সমীচীন হবে না বলেও মনে করেন তিনি।

এছাড়া জিয়া পরিবারের একাধিক সদস্য কিছুদিন পূর্বেই ইতালি থেকে ঘুরে এসেছেন। যার ফলে তাদের শরীরে করোনাভাইরাস থাকতে পারে। একারণে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করাটা ঠিক হবেনা-মনে করছেন দলের এই তৃতীয় ক্ষমতাধর ব্যক্তি।

মির্জা ফখরুল ইসলামের ঘনিষ্ঠ সূত্রের বরাতে জানা গেছে, ২১ মার্চ খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাতের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেছেন শামীম ইস্কান্দার, কানিজ ফাতেমা, সেলিমা ইসলাম, অভিক ইস্কান্দার ও রাইসা ইসলাম। কিন্তু জিয়া পরিবারের এই সিদ্ধান্তে খুশি হতে পারেননি দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম। কারণ মির্জা ফখরুলের কাছে তথ্য ছিলো, শামীম ইস্কান্দার ফেব্রুয়ারি মাসের শেষ দিকে পরিবার নিয়ে ইতালিতে ঘুরতে গিয়েছিলেন।

এছাড়া তিনি বেশ কিছুদিন ধরে জ্বর-সর্দিতে ভুগছেন। তাই এই অবস্থায় দল বেধে খালেদার জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করাটা নিছক বোকামি বলে মনে করছেন তিনি। কারণ বেগম জিয়ার বয়স সত্তরের উপরে। তাই জিয়া পরিবারের কোন সদস্যের মাধ্যমে যদি বেগম জিয়ার মধ্যে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে, তবে বিষয়টি হবে আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত। ইতোমধ্যে এর গুরুত্ব অনুধাবন করে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ না করতে শামীম ইস্কান্দারের কাছে চিঠিও পাঠিয়েছেন মির্জা ফখরুল।

খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাতের বিষয়ে মির্জা ফখরুলের অনাস্থার বিষয়ে জানতে বাংলানিউজ ব্যাংকের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয় খালেদার ছোট বোন সেলিমা ইসলামের সঙ্গে। তিনি এই প্রতিবেদককে বলেন, আমরা খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দ্বারস্থ হয়েছি। এখনও অনুমতি পাইনি। কিন্তু শামীম ইস্কান্দারকে জড়িয়ে অসুস্থতার যে তথ্য ছড়ানো হচ্ছে সেটি সত্য নয়। জ্বর-সর্দি হলেই তো করোনায় আক্রান্ত নয়। আগে পরিবার, পরে দল। বেগম জিয়ার ব্যাপারে এখন থেকে আমরা সিদ্ধান্ত নেব। মির্জা ফখরুলদের কথা শুনলে তো চলবে না। তারা খালেদা জিয়ার জন্য এতোদিন কি করেছে, সেটি আমরা দেখেছি। শুধু কথা বললেই দায়িত্ব শেষ হয়ে যায় না।

আমার রাজশাহী
আমার রাজশাহী
রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর