রোববার   ০৫ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ২২ ১৪২৬   ১১ শা'বান ১৪৪১

আমার রাজশাহী
১৮

চসিক নির্বাচন: কাউন্সিলর প্রার্থী নিয়ে বিপাকে চট্টগ্রাম বিএনপি!

ডেস্ক নিউজ

প্রকাশিত: ১৫ মার্চ ২০২০  

আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ডা. শাহাদাতকে মেয়র প্রার্থী মনোনীত করেছে বিএনপি। মনোনয়ন বাতিলের আশঙ্কায় একাধিক প্রার্থীকে মনোনীত করে ফরম সংগ্রহ করলেও পরবর্তীতে মনোনয়ন প্রত্যাহার করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে বিএনপির বেশ কয়েকজন ‘ব্যাকআপ’ প্রার্থী। এবার প্রায় একই অবস্থা দাঁড়িয়েছে কাউন্সিলর প্রার্থীদের নিয়েও।

সূত্র বলছে, সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রতি ওয়ার্ডে একজন করে কাউন্সিলর প্রার্থীকে দলীয় সমর্থন দেয় বিএনপি। একক কাউন্সিলর প্রার্থী দিলেও কৌশলগত কারণে কিছু ওয়ার্ডে একাধিক প্রার্থীকে অলিখিত সমর্থন দেওয়া হয়েছে। সমর্থন পাওয়া এসব প্রার্থীর কাছ থেকে নেওয়া হয় প্রত্যাহারপত্র। শেষ দিনে ৯ জন প্রার্থী প্রত্যাহার করলেও ৪ জন প্রার্থী মনোনয়ন প্রত্যাহার করেননি। অলিখিত সমর্থন পাওয়া এ চার প্রার্থী এখন বিএনপির গলার কাঁটায় পরিণত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

এদিকে দলীয় সমর্থন পাওয়া প্রার্থীদের বাইরে ১৩টি সাধারণ ও ২টি সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ডে বিএনপির মোট ১৬ জন (বিদ্রোহী) প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন নির্বাচন কমিশনে। এরমধ্যে মাত্র একজন বাদ পড়েন। তার জায়গায় স্থান পান নগর যুবদলের সাহিত্য ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল হক মাসুম। অন্যদিকে দল সমর্থিত হাফিজুল ইসলাম বাছাইয়ে বাদ পড়ায় ২০ নং দেওয়ান বাজার ওয়ার্ডে দলীয় সমর্থন পান বিদ্রোহী প্রার্থী লিয়াকত আলী। ৮ মার্চ মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিনে ৯ জন মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেন। তবে তিনটি ওয়ার্ডে চারজন প্রার্থী মনোনয়ন প্রত্যাহার করেননি। শেষ পর্যন্ত এই চার প্রার্থী নিজেদের বিদ্রোহীর তালিকায় নাম লেখান।

চার বিদ্রোহী প্রার্থীর বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক (চট্টগ্রাম বিভাগ) মাহবুবুর রহমান শামীম বলেন, আমরা চেষ্টা করছি বিষয়টি সমাধান করার। কী হয় দেখা যাক। যদি চেষ্টা সফল না হয়, তাহলে দলীয়ভাবে ব্যবস্থা নেয়া হবে। দলের কথা না শুনলে সাংগঠনিকভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে হাইকমান্ডের এমন দ্বিমুখী সিদ্ধান্তে বিএনপি বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে বলে জানা গেছে। বিদ্রোহী চার প্রার্থীর মধ্যে শামীমা নাসরিনের অভিযোগ, রাতের আঁধারে তার প্রার্থিতা পরিবর্তন করে মাহমুদা সুলতানা ঝর্ণার নাম ঘোষণা করা হয়। কাউন্সিলর প্রার্থীর নাম ঘোষণার দিনও তার নাম ছিলো তালিকায়। অবশ্য তার এ যুক্তির সত্যতা পাওয়া গেছে ঘোষিত প্রার্থী তালিকায়। বিদ্রোহী এ চার প্রার্থী এখন প্রচারণায় রয়েছেন। দেখার বিষয় প্রচারণা থেকে তাদের কিভাবে ঠেকাবে বিএনপি!

আমার রাজশাহী
আমার রাজশাহী
এই বিভাগের আরো খবর