• বুধবার   ২৭ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৩ ১৪২৭

  • || ০৪ শাওয়াল ১৪৪১

আমার রাজশাহী
৭৩৯

চারঘাটে হোম কোয়ারেন্টিনে একই বাড়ির ২৭ জন সদস্য

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১ এপ্রিল ২০২০  

 

রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার পশ্চিম কালুহাটি কালিতলা এলাকায় করোনাভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে ২৭ জন সদস্যের ৩টি পরিবারকে হোম কোয়ারেন্টিনে রেখেছে স্থানীয় প্রশাসন।

মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) আনিসুর রহমান ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে হোম এ ঘোষণা দেন।

এসময় ওই পরিবার গুলোর ২৭ জন সদস্যকে ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার অনুরোধ জানান তিনি। করোনাভাইরাস সংক্রমণের প্রাথমিক লক্ষণ পাওয়া যাওয়ার পর হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা ওই পরিবার গুলোকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী ও খাবার সরবরাহ করা হয়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য কামাল হোসেন জানান, পশ্চিম কালুহাটি কালিতলা এলাকার জনৈক মকবুল হোসেনের ছেলে বাবু, ডাবলু ও মেয়ে জামায় সুজন আহম্মেদ মঙ্গলবার বিকেলে ঢাকায় থেকে আসেন তাদের নিজ বাড়ীতে। এসময় বাবু জ্বর, স্বর্দি ও কাশি নিয়ে বাড়ীতে ফেরায় এলাকাবাসির মাঝে জরোনা আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পরে খবর দেয়া হয় উপজেলা প্রশাসনের কাছে।

সংবাদ পেয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) আনিসুর রহমান পুলিশ প্রশাসনকে সঙ্গে নিয়ে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে আসেন ঘটনাস্থলে। এসময় ঢাকায় থেকে আসা বাবু ও ডাবলুকে অসুস্থ এবং সুজন আহম্মেদও ঢাকায় থেকে আসায় তাদের পরিবারের ২৭ জন সদস্যের সকলকে ১৪ দিন হোম কোয়ারেইন্টিনে থাকার অনুরোধ করেন। এসময় ওই পরিবারের সদস্যদের সংস্পর্শে কাউকে না যাওয়ার আহ্বান জানানো হয়।

ইউপি সদস্য কামাল হোসেন আরো বলেন, ঢাকায় থেকে আসা বাবু ঢাকায় একটি চাইনিজ রেষ্টুরেন্টে কাজ করতেন। আর তার ছোট ভাই ডাবলু একটি গার্মেন্টস ফ্যাক্টরীতে এবং বোন জামায় রিক্সা চালাতেন। বাড়ীটির সকল সদস্যকে হোম কোয়ারেন্টিন করায় এলাকাবাসির মাঝে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) আনিসুর রহমান জানান, বাবু ও ডাবলু করোনা ভাইরাসের লক্ষন নিয়ে এবং তাদের বোন জামায় সুজন তাদের সঙ্গে ঢাকা থেকে বাড়ীতে আসায় তাদের ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার অনুরোধ জানানো হয়েছে। তাদের বাড়ীতে খাবার পৌছে দেয়া হয়েছে।

বিষয়টি সম্পর্কে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক ডা: শহিদুল ইসলাম রবিন বলেন, ঐ বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা ব্যাক্তিদের শরীরে দেখা দেয়া লক্ষন বিবেচনা করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এতে যদি তারা সুস্থ হয়ে উঠেন তাহলে পরবর্তীতে আক্রান্ত ব্যাক্তিদের নমুনা সংগ্রহ করা হবে। ১ এপ্রিল থেকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা ভাইরাস এর নমুনা পরীক্ষা কাজ শুরু হয়েছে।

 

স/মা

আমার রাজশাহী
আমার রাজশাহী
রাজশাহী বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর