সোমবার   ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০   ফাল্গুন ৫ ১৪২৬   ২২ জমাদিউস সানি ১৪৪১

আমার রাজশাহী
৫৭৫

ছিনতাইকারী যখন তানোর উপজেলা পরিষদের অফিস সহকারী

নিজস্ব প্রতিবেদক, তানোর

প্রকাশিত: ৪ জুলাই ২০১৯  

রাজশাহীর তানোর উপজেলা পরিষদের অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর তৌফিকুল ইসলাম তৌফিকের বিরুদ্ধে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে মোটরসাইকেল ছিনতায়ের ঘটনা তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে বলে জানা গেছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর থানা পুলিশ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এ বিষয়ে গোমস্তাপুর থানা পুলিশের তদন্তকারী কর্মকর্তা সাব ইন্সপেক্টর রনি কুমার দাস তানোর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে একটি তদন্ত প্রতিবেদনও জমা দিয়েছেন। বর্তমানে তৌফিক তানোর উপজেলা পরিষদ কার্যালয়ে কর্মরত আছেন। নিয়মিত অফিস করছেন।

বৃহস্পতিবার ইউএনও নাসরিন বাবু সাংবাদিকদের বলেন, গোমস্তাপুর থানা পুলিশের তদন্ত প্রতিবেদন পেয়েছি। বিষয়টি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মহোদয়সহ সংশ্লিষ্ট সকলকে জানানো হয়েছে। 

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার নাচোল উপজেলার সানপুর গ্রামের নাইমুল ইসলামের পুত্র তৌফিকুল ইসলাম। তিনি চলতি বছরের ২৯ জানুয়ারি নাচোল উপজেলার দানিয়ালগাছী গ্রামের মুকুলের ক্রয়কৃত নতুন মোটরসাইকেল ভুয়া ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে ছিনতাই করে। তবে ওই মোটরসাইকেল নিয়ে আসার পথে উপজেলার কলেজ মোড়ে মোটরসাইকেলসহ তাকে এবং তোহিদুল নামে তার এক সহযোগীকে হাতেনাতে গ্রেফতার করে গোমস্তাপুর থানা পুলিশ।

গ্রেফতারের পর তৌফিক বেশকিছু দিন জেলও খাটেন। এ ঘটনায় গোমস্তাপুর থানার সাব ইন্সপেক্টর রনি কুমার দাস দীর্ঘ তিনমাস তদন্ত শেষে সংশ্লিষ্ট দফতরে এই প্রতিবেদন দেন।

বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে অভিযুক্ত তৌফিকুল ইসলাম তৌফিকের মুঠোফোনে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তার মন্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। 

এ নিয়ে তানোর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না এই প্রতিবেদককে বলেন, তিনি এবিষয়ে অবগত নন। দ্রুত খোঁজ খবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আমার রাজশাহী
আমার রাজশাহী
এই বিভাগের আরো খবর