• রোববার   ৩১ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৭ ১৪২৭

  • || ০৮ শাওয়াল ১৪৪১

আমার রাজশাহী
৩১

মেয়রকে নিয়ে নুরে মোহাম্মদী ইতির মিথ্যাচার, সমালোচনার ঝড়

ডেস্ক নিউজ

প্রকাশিত: ১৯ এপ্রিল ২০২০  

গাজীপুর সিটি করপোরশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে নিয়ে বাজে ভাষায় ফেসবুকে মিথ্যাচার করেছেন নুরে মোহাম্মদী ইতি (৪২) নামের এক নারী। তিনি সম্প্রতি এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে মেয়রের সঙ্গীয় নেতাকর্মীদের অশ্লীল ভাষায় গালি দেন। এ নিয়ে স্থানীয়সহ রাজনৈতিক মহলে সমালোচনার ঝড় বইছে।

বিশিষ্টজনরা বলছেন, ওই নারী নিজেকে আওয়ামী লীগ সমর্থিত দাবি করলেও অন্তরালে তিনি কোন দলের আদর্শ লালন করেন তা এখনই খতিয়ে দেখা দরকার। তা না হলে তার মত অনেকেই ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নাম ভাঙিয়ে একের পর অপকর্ম করে যাবে, যার দায় বর্তাবে সরকারি দলের উপর।

বিশ্বস্ত সূত্রের তথ্যমতে, বর্তমানে গাজীপুরে ভাড়া বাড়িতে থাকলেও নুরে মোহাম্মদী ইতি উওর ছায়া বীথি এলাকায় আড়াই কাঠা জমি কিনেছেন। যার প্রতি কাঠার মূল্য ২৭ লাখ টাকা। অথচ ইতি ও তার স্বামী দু’জনাই বেকার। যদিও ইতি নিজেকে স্থানীয় একটি স্কুলের শিক্ষিকা হিসেবে দাবি করেন।

তবে খোঁজ নিয়ে এর কোন সত্যতা মেলেনি। মূলত তিনি দেহব্যবসার সঙ্গে জড়িত বলে এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে। আর এ কাজে নিজের খদ্দের প্রাপ্তিতে তিনি সরকার দলীয় আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাদের নাম ব্যবহার করেন। এমনকি তিনি অদ্যাবধি তিনটি বিয়েও করেছেন বলে সূত্রটি নিশ্চিত করেছে। প্রতিবার তিনি স্বামী বদল করেন শুধুমাত্র একটি কারণে।

আর সেটি হলো, তার মতের বিরুদ্ধে কথা বললেই তিনি তাকে বিভিন্ন হুমকি দিয়ে তালাক দেন। তার বর্তমান স্বামী এসব জেনে মুখ বুঝে থাকেন এবং তার সঙ্গে বিভিন্ন কাজ যেমন, তার খদ্দের জোগাড় করে দেয়াসহ বিভিন্ন কাজে দালালি করেন।

সূত্রটি আরও জানায়, তিনি গাজীপুর মহানগর আওয়ামী যুব মহিলা লীগ কিংবা আওয়ামী রাজনীতির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট নন। অথচ নিজেকে এবং নিজের পরিবারকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের বলে দাবি করেন। অথচ আদতে এমন কিছুই নয়। তিনি ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতেই এমনটা করেন। সঙ্গে আওয়ামী ও সরকার সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন পোস্ট দেন ফেসবুকে। যাতে সবাই ধারণা করে তিনি আওয়ামী রাজনীতিতে সক্রিয় রয়েছেন।

তার এসব অপকর্মের কথা জানতে পেরে গাজীপুর সিটি করপোরশনের মেয়র মো. জাহাঙ্গীর আলমের সঙ্গীয় নেতাকর্মীরা তাকে শুধরে যাওয়ার অনুরোধ করেন। এতে নুরে মোহাম্মদী ইতি ক্ষুব্ধ হয়ে ফেসবুকে তাদেরকে হেয় করে স্ট্যাটাস দেন। পরে পরিস্থিতি আরও ঘোলাটে হলে স্বয়ং মেয়র তাকে ফোন দিলে তিনি তার সঙ্গেও অসৌজন্যমূলক আলোচনা করেন।

এ ব্যাপারে গাজীপুর সিটি করপোরশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম বলেন, বিভিন্নজন আমাকে ইতির ব্যাপারে অবহিত করলে আমি সরল মনে তার চলমান কর্মকাণ্ড ও স্বামী-স্ত্রী বেকার থেকেও তাদের আয়ের উৎসসহ বর্তমান সম্পত্তির কথা জানতেই তিনি চড়াও হন এবং আমাকে ‘জঘন্য মেয়র’ বলে চিল্লাচিল্লি শুরু করেন। একইসঙ্গে আমাকে অভদ্র উল্লেখ করে, যা খুশি তাই করার চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন। পরে আমি মান-সম্মানের ভয়ে কথা না বাড়িয়ে ফোন রেখে দিই।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে একাধিকবার নুরে মোহাম্মদী ইতির মোবাইলে যোগাযোগ করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

আমার রাজশাহী
আমার রাজশাহী
রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর