সোমবার   ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০   ফাল্গুন ১১ ১৪২৬   ২৯ জমাদিউস সানি ১৪৪১

আমার রাজশাহী
২৬

রাজশাহী মহিলা পলিটেকনিকে সাইবার অপরাধ বিষয়ে সচেতনতামূলক কর্মশালা

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারি ২০২০  

রাজশাহী মহিলা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে “মাদক, সাইবার অপরাধ ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ” শিরোনামে একটি সচেতনতামূলক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ রোববার ইনস্টিটিউটের মাল্টিপারপাস হলে এই কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। 

কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শাহমখদুম জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার মোঃ হাফিজুল ইসলাম এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন,পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ আবুল কালাম আজাদ।

কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন রাজশাহী মহিলা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ জনাব মোঃ ওমর ফারুক। কর্মশালায় ইনস্টিটিউটের শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও ছাত্রীসহ চার শতাধিক উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ও কী-নোট স্পিকার জনাব মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম “মাদক, সাইবার অপরাধ ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ” বিষয়ে সচেতনতা মূলক প্রেজেন্টেশন প্রদান করেন। উপস্থাপনায় তিনি মাদকের ভয়াবহতা, পরিণতি এবং এর থেকে পরিত্রাণের বিষয়ে আলোকপাত করেন।

তিনি বলেন, মাদক এক ভয়াবহ নেশা ও ব্যাধি যা নিজের জীবন, পরিবার কে কঠিন পরিণতি সহ্য করতে হয়। মাদক যেমন নিজের জীবন কে ধ্বংস করে তেমনি পরিবারের সুখ, শান্তি বিনষ্ট করে। তাই মাদকের সংস্পর্শে না এসে এর ভয়াবহতা সবার মাঝে তুলে ধরার আহবান জানান।

সাইবার ক্রাইম সমন্ধে তিনি বিষদভাবে তথ্য উপাত্ত উপস্থাপন করেন, তিনি উল্লেখ করেন সাইবার ক্রাইম হচ্ছে অবৈধ ও অনাধিকার প্রবেশ। ডিজিটাল এই যুগে অনেকেই অসচেতনতার জন্য এই ক্রাইমের শিকার হচ্ছে। সাধারণত খারাপ উদ্দেশ্যে, অন্যকে হেয় করা, ক্ষতি করা, অন্যের সুনাম বিনষ্ট করা, সরকার ও দেশের ভাবমুর্তি নষ্ট করার জন্য সাইবার ক্রাইম সংগঠিত করা হয়।

বিভিন্ন উদাহারণ দিয়ে তিনি বলেন, তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে নিজের অসচেতনতার জন্যই এই ক্রাইমের শিকার হতে হয়। এর মধ্যে মেয়েরা বেশি প্রতারণার শিকার হয়। ভুল মেসেজ ও মোবাইল কলের মাধ্যমে প্রলোভন দেখিয়ে বিকাশ পাসওর্য়াড নেওয়া, প্রলোভন দেখিয়ে টাকা আদায় করা। বিভিন্ন দেশের দূতাবাসের ই-মেইল আইডি হ্যাক করা, ভিডিও কলস, হোয়াটস অ্যাপ, মেসেঞ্জার, ফেসবুকের মাধ্যমে প্রতারণা করে একান্ত ব্যাক্তিগত ছবি প্রকাশ করার ভয় দেখিয়ে অর্থ আত্মসাৎ করা, পর্নোগ্রাফির ভয় দেখিয়ে অর্থ আদায় করা।

তিনি আরও বলেন, কেউ সাইবার অপরাধের শিকার হলে না লুকিয়ে নিজের অভিভাবক কে জানানো বা আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে অবহিত করা, প্রয়োজনে লিগ্যাল এ্যাকশন নেওয়ার পরামর্শ দেন। তিনি ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন-২০১৮ বিষয়েও সংক্ষেপে আলোকপাত করেন।

জঙ্গী ও উগ্রবাদ সমন্ধে সবাইকে তিনি বলেন, অতি উৎসাহি ও আবেগপ্রবণ না হয়ে এবং ধর্মীয়, সাংস্কৃতিক বিষয়ে উগ্রতা পরিহার করে বাস্তবতা ও সত্যকে মেনে নেওয়ার আহবান জানান। তিনি অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকল শিক্ষক ও ছাত্রীকে সাইবার অপরাধ থেকে বিরত থাকা এবং মাদক, জঙ্গীবাদ কে না বলা অঙ্গীকার করান। কর্মশালায় উন্মুক্ত আলোচনায় বিভিন্ন শিক্ষার্থী, শিক্ষক,কর্মচারী অংশগ্রহণ করেন। 

কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য দেন, শহীদে মোস্তফা মোহাম্মদ আরেফ রব্বানী, আহবায়ক- মাদক, সাইবার অপরাধ ও জঙ্গীবাদ প্রতিরোধে সচেতনতামূলক কর্মশালা ও বিভাগীয় প্রধান ইলেকট্রনিক্স, রাজশাহী মহিলা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট ।

কর্মশালার সভাপতি অধ্যক্ষ জনাব মোঃ ওমর ফারুক কর্মশালায় উপস্থাপিত ও আলোচিত বিষয়ে শিক্ষার্থী ও  উপস্থিত সকলকে মেনে চলার আহবান জানান। ইন্টারনেট ও সামাজিক দুুনিয়ায় মিথ্যা তথ্য পরিবেশন না করা, কোন তথ্য বা ঘটনা যাচাই না করে শেয়ার না করার অনুরোধ করেন। কর্মশালাটি সাফল্যমন্ডিত করার জন্য সকলকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

এমএমআই

আমার রাজশাহী
আমার রাজশাহী
এই বিভাগের আরো খবর