সোমবার   ৩০ মার্চ ২০২০   চৈত্র ১৬ ১৪২৬   ০৫ শা'বান ১৪৪১

আমার রাজশাহী
৩৫

শিরকের গুনাহ আল্লাহ ক্ষমা করবেন না

ডেস্ক নিউজ

প্রকাশিত: ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

শিরক হলো আল্লাহ তায়ালার সাথে কোনো ব্যক্তি বা বস্তুকে শরীক করা, কাউকে তার সঙ্গে তুলনা করা এবং কাউকে তার অংশীদার মনে করাকে শিরক বলে। শিরক সবচেয়ে বড় জুলুম। সবচেয়ে বড় পাপ। সকল ইবাদাতকে শিরক মুক্ত করা। আল্লাহ্র নবী মুহাম্মাদ সাঃ আল্লাহ পক্ষ থেকে আহ্বান করেছিলেনঃ সরল পথ

قُلْ يَا أَهْلَ الْكِتَابِ تَعَالَوْا إِلَىٰ كَلِمَةٍ سَوَاءٍ بَيْنَنَا وَبَيْنَكُمْ أَلَّا نَعْبُدَ إِلَّا اللَّهَ وَلَا نُشْرِكَ بِهِ شَيْئًا وَلَا يَتَّخِذَ بَعْضُنَا بَعْضًا أَرْبَابًا مِّن دُونِ اللَّهِ ۚ فَإِن تَوَلَّوْا فَقُولُوا اشْهَدُوا بِأَنَّا مُسْلِمُونَ-آل عمران/৬৪
 
‘’ বল, হে আসমানি কেতাবের অনুসারীগণ, আসো ঐ কালিমার দিকে যা আমাদের ও তোমাদের মধ্যে গুরুত্ব রাখে; আর তাহোলঃ আমরা কেউ আল্লাহ্ ছাড়া আর করো উপাসনা করবোনা। এবং আল্লাহ্র সাথে কোন কিছু শরীক করবোনা। আর আল্লাহ্ ছাড়া পরস্পর একে অপরকে রব মানবোনা। একথা না মেনে যদি তারা পিছটান দেয় তাহলে বল যে, তোমরা সাক্ষী থাকো যে আমরা মুসলমান’’-( আল ইমরান/৬৪)।

 ‘ইহুদিবাদী ইসরাইলের ইচ্ছাকে অন্ধভাবে পূরণ করে চলেছেন ট্রাম্প’ ≣ সাকিবকে খাওয়া-দাওয়া কমাতে বললেন প্রধানমন্ত্রী ≣ শনিবার ৪০তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা শুরু
‘স্মরণ করুন, যখন লুকমান উপদেশস্বরূপ তার ছেলেকে বলল, হে ছেলে! আল্লাহর সাথে শরিক করো না। নিশ্চয় আল্লাহর সাথে শরিক করা সবচেয়ে বড় জুলুম।’ [সুরা লুকমান : ১৩]

আল্লাহর হক সংশ্লিষ্ট সব গুনাহ পরকালে তিনি মাফ করলেও তার সঙ্গে শিরক তথা অংশীদার স্থাপন করার গুনাহ মাফ করবেন না। বরং তাদের চিরস্থায়ী আবাসস্থল জাহান্নাম।

‘নিঃসন্দেহে আল্লাহ তাকে ক্ষমা করেন না, যে লোক তার সাথে শরিক করে। তিনি ক্ষমা করেন এর নিম্ন পর্যায়ের পাপ, যার জন্য তিনি ইচ্ছা করেন। আর যে লোক অংশীদার সাব্যস্ত করল আল্লাহর সাথে, সে যেন আল্লাহকে অপবাদ দিলো।’ [সুরা নিসা : ৪৮]

‘তারা কাফের, যারা বলে যে, মরিময়-তনয় মসিহই আল্লাহ; অথচ মসিহ বলেন, হে বনি ইসরাঈল! তোমরা আল্লাহর ইবাদত করো, যিনি আমার পালনকর্তা এবং তোমাদেরও পালনকর্তা। নিশ্চয় যে ব্যক্তি আল্লাহর সাথে অংশীদার সাব্যস্ত করে, আল্লাহ তার জন্য জান্নাত হারাম করে দেন এবং তার বাসস্থান হয় জাহান্নাম। আর জালিমদের কোনো সাহায্যকারী নেই।’ [সুরা মায়েদা : ৭২]

‘আহলে কিতাব ও মুশরিকদের মধ্যে যারা আল্লাহকে অস্বীকারকারী, তারা জাহান্নামের আগুনে স্থায়ীভাবে থাকবে। সৃষ্টির মধ্যে তারাই নিকৃষ্ট।’ [সুরা বাইয়িনাহ : ৬]
সহিহ হাদিসে প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মানুষকে ৭টি ধ্বংসাত্মক কাজ থেকে বেঁচে থাকতে বলেছেন। তন্মধ্যে অন্যতম হলো ‘আল্লাহর সঙ্গে শিরক তথা অংশীদার স্থাপন করা।’ [বুখারি, আসসাহিহ : ৬৮৫৭; মুসলিম, আসসাহিহ : ৮৯]

আনাস (রা.) বর্ণনা করেন। নবি (সা.) একদিন আলোচনা করতে গিয়ে বললেন, ‘কবিরা গুনাহ হলো আল্লাহর সঙ্গে শিরক বা অংশীদার স্থাপন করা, অন্যায়ভাবে কাউকে হত্যা করা, পিতা-মাতার অবাধ্য হওয়া।’ [বুখারি, আসসাহিহ : ৫৯৭৭]

সুতরাং একজন মুমিন সর্বদা শিরকের ব্যাপারে ভীত থাকবে। শিরক থেকে বেঁচে থাকবে। জীবন চলে যাবে তবুও সামান্যতম কোনো ব্যাপারে শিরকে লিপ্ত হবে না।

আমার রাজশাহী
আমার রাজশাহী
এই বিভাগের আরো খবর